সর্বশেষ :

বাঘায় নারীকে লাঞ্চিত করায় মানববন্ধন


অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : জুন ১৯, ২০২৪ । ৮:০২ অপরাহ্ণ
বাঘায় নারীকে লাঞ্চিত করায় মানববন্ধন

বাঘা প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় পুলিশের সাথে আওয়ামীলীগ নেতারা শামসুন্নাহার নামের এক নারীকে লাঞ্ছিত করেছে। এমন ঘটনার প্রতিবাদে সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে স্থানীয়রা।

বুধবার (১৯ জুন) দুপুর দেড় টার দিকে উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের ধন্দহ বিনিময়পাড়া গ্রামে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

জানা গেছে, গত ৫ জুন ষষ্ঠ ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাত সাড়ে ৮টার দিকে জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি রোকনুজ্জমান রিন্টুর আনারস প্রতিক বিজয়ী হয়েছে মর্মে তার সমর্থিত লোকজন বিজয় মিছিল করে। প্রতিপক্ষ প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. লায়েব উদ্দিন লাভলু’র মোটরসাইকেল প্রতিকের সমর্থক ধন্দহ বিনিময়পাড়া গ্রামের আনিছুর রহমানের বাড়ির সামনে গিয়ে নাচানাচি করে।

পরে রাত ১১টার দিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মোটরসাইকেল প্রতিকের প্রার্থী অ্যাড. লায়েব উদ্দিনকে বে-সরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষনা করে। বিজয়ের ৩ দিন পরে মোটরসাইকেল প্রতিকের সমর্থকরা বিজয় মিছিল করে। মিছিলটি ধন্দহ বিনিময়পাড়া গ্রামের আনারস প্রতিকের সমর্থক বাবুল মোল্লার বাড়ির সামনে নাচানাচি করে এবং তার বাড়িতে হামলা চালায়। এ ঘটনায় বাবুল মোল্লা বাদি হয়ে আনিছুর রহমানসহ কয়েকজনকে আসামী করে থানায় অভিযোগ দায়ের করে।

এ ঘটনার জের ধরে বুধবার (১৯ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আনিছুর রহমানের বাড়ির পাশ দিয়ে একটি ভ্যান নিয়ে বাবুল মোল্লার বরফ মিলে যাচ্ছিল তার ছেলে তুহিন মোল্লা। এ সময় বাধা দেন আনিছুর রহমান। এতে তুহিন ও আনিছুরের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে ৩৩৩ নম্বরে ফোন দিয়ে আইনী সহায়তা চান। ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে সেখানে স্থানীয় আলম হোসেন, রেজাউল করিম নিজল, ইউপি মেম্বার রেজাউল করিম, সাবেক মেম্বার মসলেম উদ্দিন আসেন। সেখানে উভয়ের মধ্যে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশ লাঠি চার্জ করতে গিয়ে আনিছুর রহমানের স্ত্রী শামসুন্নাহার লাঞ্ছিত হয়। এর প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ বিষয়ে আনিছুর রহমানের স্ত্রী শামসুন্নাহার বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশের সাথে আওয়ামীলীগ নেতারা এসে পুলিশ দিয়ে আমাকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। সুষ্ঠ তদন্ত করে এর বিচারের দাবি করছি।

এ বিষয়ে বাঘা থানার সহকারি পরিদর্শক (এএসআই) আতাউর রহমান বলেন, উভয়ের মধ্যে পরিস্থিত বেগতিক দেখে পুলিশ সবাইকে চলে যেতে বলেন। সেখান থেকে সবাই চলে গেলেও এক নারী অশালিন কথা বলতে থাকে। এরপরও তাকে সরে যেতে বলার পরও সে সরে না যাওয়ায় তাকে ধমক দেওয়া হয়েছে। লাঞ্ছিতের মতো কোন ঘটনা ঘটেনি।

পুরোনো সংখ্যা

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
%d bloggers like this: